২৭শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ ।। ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ ।। শুক্রবার
স্বাগতমঃ
আমাদের সাইটে প্রবেশ করার জন্য আপনাকে অসংখ্যা ধন্যবাদ
শিরোনাম :
দৈনিক উপচার পত্রিকার প্রতিনিধি সভা অনুষ্ঠিত অসাম্প্রদায়িক ও প্রগতিশীল বাংলাদেশ গড়তে হবে- প্রতিমন্ত্রী পলক সিংড়ায় গ্রাম আদালতের এজলাস নির্মাণের অর্থ আত্মসাৎ, চেয়ারম্যানকে শোকজ ওষুধ ব‌্যবসায় নানা কৌশল ও কারসা‌জি! সিংড়াকে স্বপ্নের শহর করতে চাই-অধ্যক্ষ রকি রাজশাহীতে দুর্নীতি মামলায় গোদাগাড়ী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ জেলে রাজশাহীতে সাংবাদিক সুজাউদ্দিম ছোটনকে প্রাণ নাশের হুমকির প্রতিবাদে গোদাগাড়ী পৌর প্রেসক্লাবের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ তৃণমুল আওয়ামীলীগের কাছে মনোনয়ন চাইতে এসেছি… মামুন সিংড়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে কৃষকের মৃত্যু টমেটো ক্ষেত পরিদর্শনে বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তারা
ইন্দোনেশিয়ান মার্শাল আর্ট পেঞ্চাক সিলাতের পদযাত্রার আরেক ধাপ

ইন্দোনেশিয়ান মার্শাল আর্ট পেঞ্চাক সিলাতের পদযাত্রার আরেক ধাপ

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশ ক্রীড়া ও মার্শাল আর্ট অঙ্গনে নতুনভাবে ইন্দেনেশিয়ান মার্শাল আর্ট পেঞ্চাক সিলাত প্রমোশনাল সেমিনারের গত ৩-৫ আগষ্ট ২০২০ তারিখ রাজশাহী জেলায় মাধ্যমে পদযাত্রা শুরু করে। পেঞ্চাক সিলাত (ইন্দোনেশিয়ান উচ্চারণ: ʃpent͡ʃak ilasilat]; পাশ্চাত্য লেখায় কখনও কখনও “পেন্টজাক সিলাত” বা ফোনেটিকভাবে “পঞ্চক সিলাত” হিসাবে বানান) ইন্দোনেশিয়ন মার্শাল আর্ট হিসেবে পরিচিত। সিলাত দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া থেকে উদ্ভূত মার্শাল আর্টের একটি রূপ। এটি মূলত মালয়েশিয়ার লোকেরা ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড এবং সিঙ্গাপুরে উন্নত করেছিল। সিলাত মূলত প্রাচীন মালয় সাম্রাজ্যের জন্য স্ব-প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার একটি রূপ হিসাবে চালু হয়েছিল। তবে প্রতিবেশী দেশগুলিতে পেঞ্চাক সিলাত শব্দটি সাধারণত পেশাদার প্রতিযোগিতামূলক সিলাতকে বোঝায়। শরীরের প্রতিটি অঙ্গ ব্যবহৃত হয় এবং আক্রমণ করা যায়। বিশ্বে ট্রডিশনাল পেঞ্চাক সিলাত এটি পুরো শাররীক লড়াইয়ের ফর্ম যা অস্ত্রের পাশাপাশি প্রতিপক্ষকে স্ট্রাইক করা, ঝাঁপিয়ে পড়া এবং প্রতিনিক্ষেপ করায় মূলত এ মার্শাল আর্ট এর কাজ। পেঞ্চাক সিলাত কেবল শারীরিক প্রতিরক্ষার জন্যই নয়, মনস্তাত্বিক লক্ষ্যেও অনুশীলন করা হয়। বিশ্বে মূলতঃ ৬টি দৃষ্টিভঙ্গীতে সিলাত মার্শাল আর্ট ট্রেনিং করা হয় যথা আত্মরক্ষা, চরিত্র গঠনসহ মনোদৈহিক- আত্মিক উন্নতি, ক্রীড়া কৌশল বা নৈপুণ্য প্রদর্শন, ষ্পোর্টস বা ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, সংস্কৃতি-ঐতিহ্যগত কালচারাল অনুষ্ঠান, পাঠ্যগত শিক্ষা-দীক্ষা।

পেঞ্চাক সিলাত এর টুর্ণামেন্টে খেলার ধরণ চাইনিজ মার্শাল আর্ট “উশু সান্ডা” এর মতো। পেঞ্চাক সিলাত দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ান গেমস এবং অন্যান্য অঞ্চল-বিস্তৃত প্রতিযোগিতায় অন্তভর্ক্ত একটি খেলা বা sports পেঞ্চাক সিলাত প্রথম আত্মপ্রকাশ ১৯৮৭ সালে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ান গেমস এবং এশিয়ান গেমস-২০১৮, উভয়ই ইন্দোনেশিয়ায় অনুষ্ঠিত হয়েছিল। খেলাটি ইউনেস্কোর (ইউনাইটেড নেশনস এডুকেশনাল, সায়েন্টিফিক অ্যান্ড কালচারাল অর্গানাইজেশন) ডিসেম্বর, ২০১৯ সালে বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ হিসাবে স্বীকৃত। আগামীতে সাফ গেমসে অন্তর্ভূক্ত অভিসম্ভাবী।

আজ বিশ্বের ৫২ টি দেশে পেঞ্চাক সিলাত বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ এবং পাঠ্যবস্ত হিসেবে চলমান রয়েছে। উপমহাদেশের ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, আফগানিস্তান, মালদ্বীপসহ প্রায় ১১০ টি দেশ ক্রীড়া ক্ষেত্রে এ মার্শাল আর্ট এর প্রচার ও উন্নয়নের বিকাশ ঘটেছে। এশিয়ান পেন্কাক সিলাত ফেডারেশন (এপিএসআইএফ) অলিম্পিক গেমস-২০২০ যাত্রাসহ ধারাবাহিকতা রাখার জন্য বহিঃবিশ্বে পেঞ্চাক সিলাতের কর্মকান্ড চলমান ও গতিশীল রাখতে বাংলাদেশেও প্রতিনিধিসহ সংস্থাকে অনুমোদন প্রদান করছে।

এশিয়ান পেন্চাত সিলাত ফেডারেশন (এপিএসআএফ) কর্তৃক উত্তরবঙ্গ তথা রাজশাহী এর কৃতি সন্তান জনাব এএসএম তাহমিদুল হক জুয়েলকে প্রতিনিধিসহ বাংলাদেশ পেঞ্চাক সিলাত ফেডারেশনের দায়িত্ব পালনের অনুমোদনসহ স্বীকৃতি প্রদান করে। সিলাত মার্শাল আর্ট এর দেশের ৬৪টি জেলায় দক্ষ খেলোয়াড়, প্রতিভা অন্বেষন, প্রচার-প্রসার,উন্নয়ন করা লক্ষ্যে রাজশাহী পেঞ্চাক সিলাত এ্যাসোসিয়েশন এর উদ্যোগে গত ৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখ উত্তরা ঢাকায় সাভার পেঞ্চক সিলাত একাডেমীর ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। কোভিড-১৯ এর সামাজিক দুরত ও সাস্থ্যবিধি মেনে প্রশিক্ষণ কর্মশালাটি ফাউন্ডার পেঞ্চাক সিলাত বাংলাদেশ এর সেক্রেটারী গুরু এএসএম তাহমিদুল হক জুয়েল এর পরিচালনা করেন । উক্ত কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পেঞ্চাক সিলাত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান টুর্ণামেন্ট ও স্পোর্টস কমিটি মোহাম্ম শাহজাহান আলী ও জাতীয় কোচ আনোয়ার হোসেন আনু ও সাভার সিলাত একাডেমীর প্রশিক্ষক সুলতান মিয়।।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2019 BSN
Theme Developed BY : AKHTERUJJAMAN